সময় যাচ্ছে, বাড়ছে চকবাজারে ভয়াবহ আগুনে লাশের সংখ্যা

সময় যাচ্ছে, বাড়ছে চকবাজারে ভয়াবহ আগুনে লাশের সংখ্যা

সময় যতই যাচ্ছে চকবাজারে ভয়াবহ আগুনে লাশের সংখ্যা বাড়ছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর থেকেই চলছে লাশের সন্ধান। একের পর এক ব্যাগ ভর্তি করে লাভ বের করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ব্যাগ ভর্তি করে ৭০ টি মৃতদেহ বের করা হয়েছে।

এছাড়াও দগ্ধ অন্তত ৫০ জনকে ভর্তি করা হয়েছে ঢাকা মেডিকেলে। তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেলের চিকিৎসকেরা।

নিহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ভবনের ভেতরে আরও মরদেহ বিদ্যমান রয়েছে।

বুধবার রাতে সাড়ে ১০টার দিকে পুরান ঢাকার চকবাজার এলাকায় চুড়িহাট্টা শাহী মসজিদের পেছনের আবাসিক ভবনে আগুনের সূত্রপাত। বিকট শব্দে একটি বিষ্ফোরণের পর আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে পাশের দুটি ভবনে। সেখানে রাসায়নিকের গুদাম, খেলনার দোকানসহ বিভিন্ন দাহ্য পদার্থ থাকায় আগুন বেড়ে যায় কয়েকগুণ।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে,গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত। নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ৪০টি ইউনিট।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, ফায়ার সার্ভিসের শতাধিক কর্মীসহ অনেকেই এখানে কাজ করছেন। নগরবাসী, দেশবাসী সবার দোয়া চাচ্ছি, যাতে করে সাধারণ মানুষের জানমালের নিরাপত্তা আমরা নিশ্চিত করতে পারি।

এক প্রশ্নের জবাবে মেয়র বলেন, এই মুহূর্তে আমাদের লক্ষ্য হলো আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা। যারা আহত হয়েছেন তাদের যথাযথ চিকিৎসা দেয়া। আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর আমরা ঘটনার তদন্ত করব। কেন, কিভাবে আগুন লেগেছে সে সম্পর্কে জানাতে পারব।

ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনালের আলী আহাম্মেদ খান বলেন, আগুন লাগার পর থেকেই পর্যায়ক্রমে ফায়ার সার্ভিসের অন্তত ৪০টি ইউনিটের দুইশতাধিক ফায়ার ফাইটার্স কাজ করছে। এই জায়গাটা আসলে সংকীর্ণ, আমাদের পানির সঙ্কট হয়েছিল। এখানে বিভিন্ন ধরনের কেমিকেল আছে। আমরা দ্রুত আগুন নেভানোর চেষ্টা করছি।

আগুনের সূত্রপাত নিয়ে ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক বলেন, গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত।

Share this post