অতিরিক্ত সময়ে কুতিনহো-নেইমার যাদুতে ব্রাজিলের জয়

অতিরিক্ত সময়ে  কুতিনহো-নেইমার যাদুতে ব্রাজিলের জয়

সেন্ট পিটার্সবার্গে কোস্টারিকাকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ব্রাজিল। অতিরিক্ত যোগ করা সময়ের ১ মিনিট ও সাত মিনিটের মাথায় কুতিনহো ও নেইমার যাদুতে  জয়ের আনন্দে ভাসে ব্রাজিলিয়ান ফুটবল সমর্থকেরা ।

একের পর এক সুযোগ তৈরি করেও কাজে লাগানো যাচ্ছিল না। বারবার হতাশ হচ্ছিলেন নেইমার-কুতিনহোরা। ভাঙছিল না কোস্টা রিকার শক্ত রক্ষণ আর গোলরক্ষক কেইলর নাভাসের বাধা।

ত্রয়োদশ মিনিটে প্রথম সুযোগ টা আসে কোস্টা রিকার । ডান দিক থেকে ক্রিস্তিয়ান গামবোয়ার কাটব্যাকে লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন  ডি- বক্সে  ফাঁকায় থাকা সেলসো বোর্হেস  । এগিয়ে যাওয়ার খুব সহজ সুযোগ নষ্ট হয় কোস্টা রিকার।

ব্রাজিলের প্রথম সুযোগটা পান নেইমার ২৭তম মিনিটে। ডি-বক্সে বল পেয়ে ব্রাজিলের অন্যতম এই ফরোয়ার্ড নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার আগেই এগিয়ে এসে বাধা দেন গোলরক্ষক কেইলর নাভাস।

৪১তম মিনিটে দূরপাল্লার শটে চেষ্টা করেছিলেন মার্সেলো, তবে নাভাসকে ফাঁকি দিতে পারেননি।

প্রথমার্ধের খেলা শেষ হয়  গোল শূন্য  অবস্থায় !!

দ্বিতীয়ার্ধে  গোলের জন্য মরিয়া হয়ে আরও আক্রমণাত্মক খেলতে থাকে ব্রাজিল। তাতে খুব ভালো সুযোগ ও এসেছিল পাঁচ মিনিটের মাথাতেই।

ডান দিক থেকে ফাগনারের ক্রসে গাব্রিয়েল জেসুসের হেডে বল ক্রসবারে লাগলে গোল পায়নি ব্রাজিল। পরক্ষণেই কুতিনহোর  করা  জোরালো শট গোলের মুখে থেকে ফেরে এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে।

৫৬তম মিনিটে নেইমারের খুব কাছ থেকে নেওয়া শটে গ্লাভস লাগিয়ে ক্রসবারের উপর দিয়ে পাঠান  কোস্টা রিকার গোলরক্ষক নাভাস। কুতিনহোর করা জোরালো শট  টাও নিজের আয়ত্তে নিয়ে নেন রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে খেলা এই গোলরক্ষক।

৭২তম মিনিটে প্রতিপক্ষের ভুলে ফাঁকা  গোলে বল পেয়েও কাজে লাগাতে পারেন নি  নেইমার। ডি-বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি বল গোলের হালকা বামে দিয়ে চলে যায় মাঠের বাইরে।হতাশায় জার্সিতে মুখ ঢাকলেন  নেইমার।

একের পর এক চেষ্টা করেও ৯০ মিনিট পর্যন্ত কোন পক্ষ  ই গোলের দেখা পায়নি।

অবশেষে যোগ করা সময়ে  কুতিনহো-নেইমার যাদুতে আসে  ব্রাজিলের স্বপ্নের গোল দুটি। যোগ করা  সময়ের প্রথম মিনিটে ফিরমিনোর হেডে ডি-বক্সে পা দিয়ে নামিয়েছিলেন জেসুস। এগিয়ে এসে নিচু শটে নাভাসকে ফাঁকি দেন বার্সেলোনার হয়ে খেলা মিডফিল্ডার কুতিনহো।সেন্ট পিটার্সবার্গের গ্যালারিতে উঠল হলুদ ঢেউ।

সেই আনন্দ দ্বিগুণ করতে দৃশ্যপটে  হাজির হন  নেইমার। যোগ করা সময়ের সপ্তম মিনিটে দগলাস কস্তার কাছ থেকে বল পেয়ে ফাঁকা জালে পাঠান অরক্ষিত থাকা পিএসজির এই ফরোয়ার্ড।

অন্যদিকে ব্রাজিলের কাছে হেরে কোস্টারিকার  রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে বিদায় প্রায় নিশ্চিত । ম্যাচটা ড্র হলে বড় বিপাকে পড়তে হতো ব্রাজিলিয়ানদের। প্রথম ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের সঙ্গে ড্র করে যে অনিশ্চয়তার মেঘ তৈরি হয়েছিল, আজ কোস্টারিকাকে হারিয়ে তা অনেকটাই কেটে গেল নেইমারদের। তাই তো ম্যাচ শেষে আনন্দের কান্নায় কেঁদেই দিলেন  নেইমার ।

Share this post