পরীক্ষা ভালো না হওয়ায় মায়ের বকুনি, স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

পরীক্ষা ভালো না হওয়ায় মায়ের বকুনি, স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার গয়েশপুর গ্রামে মায়ের বকুনি খেয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে
উম্মে ফারজানা আশা নামের দশম শ্রেণির এক ছাত্রী।

আজ মঙ্গলবার সকালে গয়েশপুর গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।
এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি সুইসাইড নোটও উদ্ধার করা হয়।

নিহত আশা গয়েশপুর গ্রামের আয়ুব আলীর মেয়ে ও শ্রীপুর সরকারি এমসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী।

নিহতের পারিবার ও পুলিশ জানায়,
গতকাল সোমবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনী পরীক্ষা অংশ নেয় ফারজানা।
পরীক্ষা শেষে বিকালে বাড়ি ফেরার পর তার মা পরীক্ষা কেমন হয়েছে জানতে চান। পরীক্ষা ভালো হয়নি বলে তার মাকে জানায়।
এজন্য তাকে গালমন্দ করেন মা। এতে মায়ের ওপর অভিমান করে পরিবারের অন্যান্যরা ঘুমিয়ে পড়লে
রাতের কোনো একসময় আশা সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে।
পরে মঙ্গলবার ভোর সকালে মেয়ে আশাকে ঘুম থেকে উঠতে দেরি দেখে তার মা তাকে দরজায় গিয়ে ডাকতে থাকেন।
কোনো সাড়া না পেয়ে পরিবারের লোকজন ঘরের দরজা ভেঙে ফারজানাকে সিলিং ফ্যানের সাথে মৃত অবস্থায় ঝুলতে দেখেন।

এ ব্যাপারে শ্রীপুর থানার ওসি মাহবুবুর রহমান জানান,
এ বিষয়ে থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।
মেয়েটির সুইসাইড নোট থেকে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে পরীক্ষা ভালো না
হওয়ায় অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে।

Share this post