দ্রুত প্রজ্ঞাপন জারি না হলে অাবারও রাস্তায় নামবে ছাত্রসমাজ

দ্রুত প্রজ্ঞাপন জারি না হলে অাবারও রাস্তায় নামবে ছাত্রসমাজ

দ্রুত ৫ দফার অালোকে কোটা সংস্কার করে প্রাজ্ঞাপন জারি না করা হলে অাবারও
অান্দোলনে নামার হুশিয়ারি দিয়েছে কোটা সংস্কার প্রার্থী ছাত্রদের প্ল্যাটফর্ম
বাংলাদেশ সাধারন ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

অাজ মঙ্গলবার সকালে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী এক সমাবেশে তারা এ ঘোষণা দেয়।

সমাবেশে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুর বলেন,
“সরকার গঠিত কমিটির সুপারিশ একটি মৌখিক বিবৃতি।
অামরা রাস্তায় না থাকলে অামাদের সামনে সবসময়ই এমন মূলো ঝোলানো থাকবে।

হাসান অাল মামুন বলেন, ” ১ম ও ২য় শ্রেনীর চাকরীতে কোটা না থাকার
সিদ্ধান্তকে অামরা ইতিবাচক হিসেবে দেখছি।
তবে ৩য় ও ৪ র্থ শ্রেনীতেও অামরা যোক্তিক সংস্কার চাই।

এছাড়াও শিক্ষার্থীরা দাবি না মানা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন কর্মসূচি থেকে।

এর অাগে অান্দোলনকারীরা সায়েন্স লাইব্রেরী থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে।
মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে রাজু ভাষ্কর্যের পাদদেশে সমাবেশ
করার জন্য উদ্দেশ্য অাগালে ছাত্রলীগের কর্মীরা অাগেই সেখানে অবস্থান নিয়ে থাকে।
কোটা সংস্কারের সুপারিশকে অভিনন্দন জানিয়ে তারা বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে।
এসময় তারা শেখ হাসিনার সরকার বারবার দরকার,
মৌলবাদের অাস্তানা ভেঙে দাও গুড়িয়ে দাও স্লোগান দিতে থাকে।
রাজু ভাষ্কর্যে সমাবেশ করতে না পেরে তারা অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে ঢাবিতে প্রেস ব্রিফিং এ আবারো তাদের তিন দফা দাবি তুলে ধরেন বক্তারা।

তিন দফা দাবি গুলো হলো-
সকল ধরনের চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে বিদ্যমান কোটা ৫ দফার
আলোকে সংস্কার করে অতি দ্রুত প্রজ্ঞাপন জারি করতে হবে।

নিরাপরাধ ছাত্রদের উপর হামলাকারীদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং বিচার নিশ্চিত করতে হবে।

নিরাপরাধ ছাত্রদের উপর দায়ের করা সকল ধরণের মিথ্যা মামলা অতি দ্রুত প্রত্যাহার করতে হবে।

Share this post